ভালোবাসার হিরো সুশান্ত সিং রাজপুত

জয়দেব বেরা

সুশান্ত সিং রাজপুত জন্মগ্রহণ করেছিলেন ২১ জানুয়ারি ১৯৮৬ সালে। তিনি ভারতের বিহারের পাটনায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তাঁর মায়ের মৃত্যুর (২০০২) পর তিনি তার পরিবারের সহিত পাটনা থেকে নিউ দিল্লিতে চলে আসেন। তিনি পাটনার সেন্ট কারেন উচ্চ বিদ্যালয় এবং নিউ দিল্লির কুলাচি হাঁসরাজ মডেল স্কুল থেকে তার স্কুল জীবনের শিক্ষা সম্পন্ন করেছিলেন। তিনি পড়াশোনায় ছিলেন অত্যন্ত মেধাবী। তিনি ২০০৩ সালে ডিসিই প্রবেশিকা পরীক্ষায় সপ্তম স্থান অর্জন করেছিলেন। তারপর তিনি দিল্লি প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে যন্ত্র প্রকৌশল বিভাগে ভর্তি হন। তিনি তাঁর মেধাবীর পরিচয় দিয়েছিলেন পদার্থ বিজ্ঞানে অলিম্পিয়াড বিজয়ীর মধ্যে দিয়ে। এছাড়াও তিনি ভারতীয় খনি বিদ্যাপীঠের জন্য প্রায় ১১টি প্রকৌশল প্রবেশিকা পরীক্ষা দিয়েছিলেন, যার সব গুলোতেই তিনি উত্তীর্ণ‛ হয়েছিলেন।

তিনি ছিলেন বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী। তিনি একজন মেধাবী ছাত্রের পাশাপাশি, তিনি ছিলেন একজন বিশিষ্ট অভিনেতা ও নৃত্যশিল্পী। তিনি খুব অল্প বয়সেই তার অভিনয় ও নৃত্যের মাধ্যমে সকল মানুষেরই মন জয় করেছিলেন। টেলিভিশন জগতে তার প্রথম অভিষেক ঘটে ২০০৮ সালে রাজপুত বালাজি টেলিফিল্মস প্রযোজিত ‛কিস দেশ মে হ‍্যায় মেরা দিল’ – এ ধারাবাহিকে প্রীত জুনেজার চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে। তারপর থেকেই তিনি ধারাবাহিক ভাবে একের পর এক চরিত্রে অভিনয় করে গেছেন। ২০০৯ সালে তাঁর ‛পবিত্র রিস্তা’ ধারাবাহিকে মানব দেশমুখের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। এরপর তিনি টেলিভিশন জগৎ থেকে পা রাখলেন চলচ্চিত্র জগতে। চলচ্চিত্র জগতে এসে তিনি যে ছবি গুলো সারা বিশ্বকে উপহার দিয়েছিলেন সেগুলি হল- ‛কই পো চে’ (২০১৩), (এটি ছিল রাজপুতের প্রথম চলচ্চিত্র), ‛শুদ্ধ দেশি রোমান্স’ (২০১৩), ‛পি কে,(২০১৪), ‛ডিটেকটিভ বোমকেশ বক্সী'(২০১৫), ‛এম.এস.ধোনি: দ‍্য আনটোল্ড স্টোরি’ (২০১৬), ‛রাবতা’ (২০১৭), ‛কেদারনাথ (২০১৮)’, ‛ছিছোড়ে’ (২০১৯), ‛ড্রাইভ’ (২০১৯) প্রভৃতি। এই সমস্ত চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে তিনি সারা দেশের মানুষের মনকে জয় করেছিলেন। তার জন্য তিনি সবার কাছে হয়ে উঠেছিলেন বলিউডের সুপার হিরো। তিনি একজন সফল অভিনেতার পাশাপাশি এক বিখ্যাত নৃত্যশিল্পী হিসেবেও সারা দেশে পরিচিত ছিলেন। ২০১০ সালে তিনি ড্যান্স রিয়েলিটি শো ঝলক দিখলা যা ২ -এ মস্ত কলন্দর বয়েজ টিমে অংশগ্রহণ করেন। তারপর আবার তিনি ঝলক দিখলা যা ৪ -এ অংশগ্রহণ করে ‛বেস্ট কনসিস্টেন্ট পারফর্মার পুরস্কার পেয়েছিলেন।

এই কিংবদন্তি সুপার হিরো সুশান্ত সিং রাজপুত তাঁর অভিনয়ের জন্য বিবিধ পুরস্কার প্রাপ্ত করেছিলেন। এই পুরস্কার গুলি হল– ‘ইন্ডিয়ান টেলি অ্যাওয়ার্ডস’ (২০০৯), ‘জি গোল্ড অ্যাওয়ার্ডস (২০১০), ‛ইন্ডিয়ান টেলি অ্যাওয়ার্ডস’ (২০১০), ‘বিগস্টার এন্টারটেইনমেন্ট অ্যাওয়ার্ডস’ (২০১০), ‘এক্সপ্লোর ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ডস (২০১০), ‘জি রিস্তে অ্যাওয়ার্ডস ‘(২০১০), ‘লাওনস গোল্ড অ্যাওয়ার্ডস’ (২০১১), ‘দ‍্য গ্লোবাল ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন অনরস অ্যাওয়ার্ডস’ (২০১১), ‘এফআইসিসিআই ফ্রেমস এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ডস’ (২০১১), ‘স্টার গিল্ড অ্যাওয়ার্ডস’ (প্রথম অভিনয়) (২০১৩), ‘ স্টার গিল্ড অ্যাওয়ার্ডস’ (প্রথম অভিনয়)(২০১৩), ‘স্ক্রিন অ্যাওয়ার্ডস’ (২০১৩), ‘জি সিনে অ্যাওয়ার্ডস'(২০১৩), ‘আইবিন লাইভ মুভি অ্যাওয়ার্ডস’ (২০১৩), ‘আই আই এফ এ পুরস্কার'(২০১৩) প্রভৃতি।

এই শ্রেষ্ঠ বলিউডের সুপার স্টার সুশান্ত সিং রাজপুত অবশেষে ৩৪ বছর বয়সে ২০২০ সালের ১৪ ই জুন শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। জানা যায় বিষণ্ণতায় ভোগার ফলে ১৪ই জুন মুম্বাইয়ের বান্দ্রায় নিজ বাসায় ফাঁসিতে ঝুলে তিনি আত্মহত্যা করেছেন।যদিও তাঁর মৃত্যুর বিষয়টি নিয়ে এখনো অনেক বিতর্ক ও রহস্য রয়েছে। যাইহোক,তাঁর আত্মার চির শান্তি কামনা করি। উনি যেন ঘুমের দেশে ভালো থাকেন এই প্রার্থনা করি। সমগ্র মানব জাতির চিত্তে সুশান্ত সিং রাজপুত অমর রহে।